পুজো পরিক্রমা (১)

পুজো এসেছিলো। আবার চলেও গেছে।

ভাগ্যিস!

সত্যি বলতে কি এই দুর্গাপুজোর মত শিক্ষামূলক এপিসোড আমার আর আমার মতো আর কজনের জীবনে বহুদিন আসেনি।

পুজো মানেই জনসমাগম এবং জনসমাগম মানেই কিছু দুর্দান্ত গোলমেলে জনতার আবির্ভাব। মানে অনেক রকম অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে।

ধরুন আপনি ভাবছেন, আহা ফাঁকা মাঠ, একটু নিশ্চিন্তে ড্রিবল করা যাক। প্র্যাকটিস থাকা ভালো। বলা নেই কওয়া নেই, বলটা যে কখন ছিনতাই হয়ে যাবে বুঝতেও পারবেন না।

আমার আবার যাদের সঙ্গে দিবারাত্রি ওঠাবসা, তারা সকলেই অত্যন্ত ক্ষমাশীল প্রকৃতির প্রাণী , মায়ের ভাষায় বললে “বিগলিত ব্যানার্জি” ক্যাটিগরি আর কি।

চোখের ওপর দেখতে পাচ্ছে, বক্সের ভেতরে ফাউলটা হল, কোন প্লে অ্যাক্টিং  এর চক্কর নেই, ভয়াবহ ব্যথা লেগেছে, অবধারিত পেনাল্টি,কিন্তু আপনি ফ্রি কিক ও পাবেন না। সূর্যদা শান্ত সমাহিত মুখে গোলপোস্টের নিচে যীশুর ন্যায় অবিচল।

দলে অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার নেইই। আর আমার যেটা সবচাইতে মুশকিল, চিরকাল ফরোয়ার্ডে খেলা অব্যশ, কতক্ষণ আর নিচে নেমে ডিফেন্স করা যায়?

তাই একটা সময়ের পর আমার দম শেষ হয়ে যায়। যায়ই। তখন আমি কর্ণার ফ্ল্যাগের কাছাকাছি দাঁড়িয়ে থাকা সহযোদ্ধাকে (এই শব্দটা আনন্দবাজার থেকে শিখেছি) আপ্রাণ ইশারা করতে থাকি, ওরে এবার আয়। উদ্ধার কর, আমি গ্লুকোজ খেতে যাই।

ময়ূখ বলে পুজোর পরে বেশ কয়েকদিন আমার গলাটা নাকি নীল হয়ে থাকে। জেনেশুনে বিষ করেছি পান সিন্ড্রোম আর কি।

সে যাই হোক, এবার আমার খুব ইচ্ছে ছিল, স্টেজে উঠে যদি চিল্লামিল্লি করতেই হয়, লক্ষ্মীপুজোর দিন উঠবো। ওইদিন একটু চাপ কম থাকে কিনা, আমাকে তাই দেখতেও আরেকটু বেশি ভাল লাগবে।

যেমন ভাবা তেমনি কাজ। ধরলাম আমাদের কালচারাল সেক্রেটারিকে।

কথাটা বলেছি কি বলিনি আমার প্রাণের বন্ধু প্যারালিসিস হয়ে যাওয়া মুখে শিউরে উঠলো, “বলছিস কি? দুর্গাপুজোর দিনই তো যতো বড় বড় ঝড় রে। সেই সব সামলে শেষ অব্দি দর্শক টেনে রাখবার ক্যাপাসিটি তোর মতো দজ্জাল ছাড়া আর কাকে দেব ভরসা করে বল। তোকে এমনিতেও কেউ দেখবে না, ওমনিতেও না। কিরকম দেখাচ্ছে সেটাতে আর কি যায় আসে। এসব মাথাতেও আনিস না! আমার প্রেশারের অবস্থা ভাল নয় , থাকতে পারে না পুজো না চোকা  পর্যন্ত জানিসই যখন কেন বন্ধু মেরে খুনের দায়ে পড়বি”?

এই অপূর্ব বাণীর পরে নীলেশকে শততম বারের মতো ধরণী থেকে ভ্যানিশ করে ফেলবার অদম্য বাসনাটাকে মরণপণ চেষ্টায় দমন করে ফেলা ছাড়া আমার আর বিশেষ কিছু করবার ছিল না।

 

 

 

 

 

 

 

 

Advertisements

3 Comments

Add yours →

  1. bhalo like cho.
    i had to ask my home minister to help me out reading.

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: